Petition Closed

Because once you allow the government to censor someone else, you cede to it the power to censor you. Censorship is like poison gas: a powerful weapon that can harm you when the wind shifts.

কারন একবার যখন কাউকে সেন্সর করার জন্য আপনি সরকারকে সম্মতি দেন, আপনি সরকারকে আপনাকেই সেন্সর করার ক্ষমতা দিয়ে দেন। সেন্সরশীপ বিষাক্ত গ্যাসের মত একটা শক্তিশালী অস্ত্র যা হাওয়া পরিবর্তন হলে আপনার ক্ষতি করতে পারে।

In March 2009, YouTube was blocked in Bangladesh after a video was posted that revealed the military’s discontent with how the government was handling a mutiny by border guards in Dhaka. In May 2010, the Government of Bangladesh blocked access to Facebook, a popular social networking site, after the arrest of a youth for uploading satiric images of some politicians, including the prime minister and the leader of the opposition. Most recently, on 17 September 2012, YouTube was banned for the second time following the controversy surrounding “Innocence of Muslims,” an anti-Islamic movie trailer. These government actions stand in stark contradiction not only to the government’s own vision of a “Digital Bangladesh”, but also to the Universal Declaration of Human Rights, and to human decency.

মার্চ ২০০৯ সালে, বাংলাদেশে ইউটিউব অবরুদ্ধ করে দেয়া হয় যখন সীমান্ত রক্ষিবাহিনীর বিদ্রোহ দমনে সরকারের পদক্ষেপের প্রতি সামরিক বাহিনীর অসন্তোষ প্রকাশ করে একটা ভিডিও পোস্ট করা হয়। মে ২০১০ সালে, বাংলাদেশ সরকার জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগের সাইট ফেসবুক অবরুদ্ধ কর দেয় যখন প্রধানমন্ত্রী এবং বিরোধী দলীয় নেত্রীসহ কিছু রাজনীতিবিদকে ব্যঙ্গকারী কিছু ছবি আপলোড করে একজন যুবককে আটক হয়। অতি সম্প্রতি, ১৭ই সেপ্টেম্বর ২০১২ সালে, “ইন্নোসেন্স অব মুসলিমস” নামেরএকটা ইসলাম বিরোধী চলচ্চিত্রের ট্রেইলারকে নিয়ে সৃষ্ট বিতর্কের পরিপ্রেক্ষিতে দ্বিতীয়বারের মত ইউটিউব নিষিদ্ধ করা হয়।  সরকারের এইসব পদক্ষেপ  তাদের “ডিজিটাল বাংলাদেশ” গড়ার প্রতিশ্রুতির সাথে সম্পূর্ন অসঙ্গতিপূর্ণ , শুধু তা-ই নয়, উপরোন্তু এসব কার্যাবলী মানবাধিকারের সার্বজনীন ঘোষনা এবং মানুষের শোভনতার পরিপন্থী।  

We are deeply dismayed at the government’s plan to set up a localized version of YouTube in Bangladesh, thereby giving itself the power to block inconvenient content, and we call on the Government of Bangladesh to stop censoring the Internet.

সরকার ইউটিউবের একটি স্থানীয় সংস্করন স্থাপনের পরিকল্পনা গ্রহন করতে যাচ্ছে। এই পরিকল্পনার মাধ্যমে সরকারঅসন্তোষজনক কন্টেন্ট অবরোধ করার ক্ষমতা নিজের উপর আরোপন করার সিদ্ধান্ত নেয়ায় আমরা হতাশ।  আমরা বাংলাদশের সরকারের প্রতি ইন্টারনেট সেন্সরশীপ বন্ধ করার জন্য আহবান জানাই।

Freedom of speech and expression is essential to both development and a well-functioning democracy. We believe in an educated citizenry and a free Bangladesh where ideas are openly disseminated, discussed, and debated. Progress is possible only if one considers all ideas, from whatever source, and tests one's own convictions against opposing views. The citizens of Bangladesh have a right not to be treated like children. They have a right to decide for themselves which opinions are hateful or offensive, whether to watch a controversial clip on YouTube or to snub it. We will not surrender the power to make these decisions to the Government of Bangladesh without making our voices heard, for history has taught us that government is more apt to use this power to persecute vulnerable groups than to protect the public good. If the people of Bangladesh are to be the masters of their fate and of their elected government, they must be well-informed and have access to all points of view. Ignorance is a breeding ground for oppression and tyranny. Censorship fits authoritarian governments such as those in Saudi Arabia and North Korea, but not the proud nation of Bangladesh.

মত এবং ভাব প্রকাশের স্বাধীনতা উন্নয়ন এবং উন্নত-ক্রিয়াশীল গনতন্ত্র উভয়ের জন্য অপরিহার্য। আমরা একটি শিক্ষিত নাগরিকগোষ্ঠী এবং মুক্ত বাংলাদেশে বিশ্বাস করিযেখানে প্রকাশ্যে  ধ্যান-ধারনা প্রচারিত, আলোচিত এবং বিতর্কিত হয়। অগ্রগতি তখনি সম্ভব যখন একজন মানুষ সব ধরনের ধ্যান-ধারনাকে বিচার-বিবেচনা করতে পারে, তা যে  উৎস থেকেই আসুক না কেন। এবং তার নিজের স্বাশ্মত বিশ্বাসকে বিপরীত দৃষ্টিভঙ্গীর সাথে নিরীক্ষা করে। বাংলাদেশের নাগরিকের অধিকার আছে শিশুদের মত গণ্য না হবার। তাদের অধিকার আছে নিজেদের মত করে সিদ্ধান্ত  নেবার কোন মতামতটি ঘৃণ্য বা আক্রমনাত্মক, ইউটিউবের বিতর্কিত ক্লিপটি তারা দেখবে না প্রত্যাখ্যান করবে। আমরা এইসব সিন্ধান্ত গ্রহনের অধিকার বিনা প্রতিবাদে বাংলাদেশ সরকারের কাছে সমর্পন করবো না, কারন ইতিহাস আমাদের শিখিয়েছে সরকার, জনগনের অধিকার রক্ষার থেকে এই ক্ষমতা নিরীহ গোষ্ঠীকে হয়রানি করার উদ্দেশ্যে ব্যবহার করতে অধিকতর পারঙ্গম। বাংলাদেশের মানুষকে যদি তাদের নিয়তি ও তাদের নির্বাচিত সরকারের কর্তা হতে হয়, তাদেরকে অবশ্যই ভালোভাবে ওয়াকিবহাল হতে হবে এবং তাদের সব ধরনের দৃষ্টিভঙ্গি সম্বন্ধে অবহিত হবার সুযোগ থাকতে হবে। অজ্ঞতা হলো নির্যাতন এবং অত্যাচারের প্রজনন স্থল। সেন্সরশীপ সৌদি আরব এবং উত্তর কোরিয়ার মত প্রভুত্বপরায়ন দেশের সাথে খাপ খায়, এই গৌরবোজ্জ্বল বাঙ্গালী জাতীর সাথে নয়।

In addition to being a moral right, the right to free speech is also a universal human right. It is enshrined in Article 19 of the United Nation’s Universal Declaration of Human Rights, which states: “Everyone has the right to freedom of opinion and expression; this right includes freedom to hold opinions without interference and to seek, receive and impart information and ideas through any media and regardless of frontiers.”

বাক স্বাধীনতার অধিকার একটি নৈতিক অধিকার এবং একটি সার্বজনীন মানবাধিকার। এটি জাতিসংঘের সার্বজনীন মানবাধিকার ঘোষনাপত্রের ১৯ নম্বর ধারার মাধ্যমে সংরক্ষিত, যাতে বলা হয়েছেঃ “প্রত্যেকের মতামত পোষণ এবং মতামত প্রকাশের স্বাধীনতায় অধিকার রয়েছে।এই অধিকারের অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে - কোনরূপ হস্তক্ষেপ ছাড়া মতামত ধারন করার স্বাধীনতা, এবং যেকোন মাধ্যম এবং সীমানা নির্বিশেষে তথ্য খোঁজ, গ্রহন এবং বিতরন করা।”

Furthermore, the honorable Prime Minister’s aspirational goal of a “Digital Bangladesh” presupposes that the citizens have free access to information. Any action taken to limit the free flow of information severely undermines the present government’s commitment to its own stated vision of a “Digital Bangladesh”. The government’s current ban of YouTube and the proposed continued censorship of the content therein will not only delegitimize the government’s own political standing and technology policies in the short term, but will also impugn on the current government’s legacy. There is no doubt that history will judge internet censorship harshly and the current government, instead of being remembered for its promotion of a “Digital Bangladesh”, will likely be remembered more for censorship’s crippling effect on democracy and “Digital Bangladesh”.

উপরোন্তু, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর “ডিজিটাল বাংলাদেশ” গড়ার উচ্চাকাংখিত লক্ষ্যের পূর্বশর্তরূপে চলে আসে নাগরিকের স্বাধীনভাবে তথ্য সংগ্রহের সুযোগ। স্বাধীন তথ্যপ্রবাহকে সীমাবদ্ধ করার যেকোন উদ্দ্যেগ, বর্তমান সরকারের ঘোষিত “ডিজিটাল বাংলাদেশ” এর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার অঙ্গিকারের ভিত্তিকে প্রচন্ডভাবে দূর্বল করে দেবে।সরকারের বর্তমান ইউটিউব নিষেধাজ্ঞা এবং  কন্টেন্ট সেন্সর করার প্রক্রিয়া বহাল রাখার প্রস্তাব শুধু সরকারের স্বীয় রাজনৈতিক অবস্থান এবং স্বল্পমেয়াদী প্রযুক্তিগত কর্মসূচিকে অযৌক্তিক করে তুলবে না, উপরন্তু তা বর্তমান সরকারের উত্তরাধিকারকে অস্বীকার করা হবে। এতে কোন সন্দেহ নেই যে ইতিহাস ইন্টারনেট সেন্সর করাকে রূঢ়ভাবে বিচার করবে এবং বর্তমান সরকারকে, “ডিজিটাল বাংলাদেশের” প্রবর্তনকারী হিসেবে স্মরন করার চেয়ে, খুব সম্ভবত গণতন্ত্রের এবং “ডিজিটাল বাংলাদেশের” উপর সেন্সরশীপের পঙ্গুত্বকারী প্রভাবের  জন্য আরো বেশী করে স্মরন করবে।

Internet censorship gives the government the power to determine what information citizens can consume on the internet. The practice is an attack on the right to freedom of speech and expression, and a threat to democracy and development.

ইন্টারনেট সেন্সরশীপ সরকারকে, জনগন কোন কোন তথ্য ইন্টারনেট থেকে গ্রহন করবে তা নির্ধারন করার ক্ষমতা দেয়। এর প্রয়োগ বাক এবং ভাব প্রকাশের স্বাধীনতার অধিকার প্রতি একটি আক্রমন, এবং গনতন্ত্র ও উন্নয়নের প্রতি একটি হুমকি। 

We urge the Government of Bangladesh to stop censoring the Internet, and to instantly halt its plans to establish a localized version of YouTube in Bangladesh.

আমরা বাংলাদেশের সরকারকে ইন্টারনেট সেন্সর করা থামানোর জন্য, এবং অবিলম্বে বাংলাদেশে ইউটিউবের স্থানীয় সংস্করন স্থাপনের পরিকল্পনাকে স্থগিত করার জন্য জোরালো ভাবে সুপারিশ করছি। 

 

Details about internet censorship in Bangladesh are available from a wide range of news sources: 

বাংলাদেশে ইন্টারনেট সেন্সরশীপের উপর বিবরন বিভিন্ন সংবাদ উৎস থেকে পাওয়া যাবেঃ

http://bdnews24.com/details.php?id=235607&cid=2
http://www.thefinancialexpress-bd.com/index.php?ref=MjBfMTFfMDVfMTJfMV84OF8xNDg5OTk
http://www.independent.co.uk/news/world/asia/youtube-blocked-in-bangladesh-over-prophet-mohamed-video-8152056.html
http://news.bbc.co.uk/2/hi/south_asia/7932659.stm

 

“The first condition of progress is the removal of censorship.” (George Bernard Shaw)

“উন্নতির প্রথম শর্ত হচ্ছে সেন্সরশীপের অপসারন।”(জর্জ বার্নার্ড শ’)

Letter to
Chairman of the Bangladesh Telecommunication Regulatory Commission Sunil Kanti Bose
Minister of Posts and Telecommunications Advocate Sahara Khatun
Minister of Law, Justice and Parliamentary Affairs Barrister Shafique Ahmed
and 2 others
Minister of Information Hasanul Haq Inu
Prime Minister of the People's Republic of Bangladesh Sheikh Hasina
Dear Prime Minister Hasina, dear Ministers Ahmed, Inu and Khatun, dear Mr. Bose:

I and the other signatories of this petition letter are deeply dismayed at your plan to set up a localized version of YouTube in Bangladesh, thereby giving yourself the power to block inconvenient content, and we call on the Government of Bangladesh to stop censoring the Internet.

Freedom of speech and expression is essential to both development and a well-functioning democracy. We believe in an educated citizenry and a free Bangladesh where ideas are openly disseminated, discussed, and debated. Progress is possible only if one considers all ideas, from whatever source, and tests one's own convictions against opposing views. The citizens of Bangladesh have a right not to be treated like children. They have a right to decide for themselves which opinions are hateful or offensive, whether to watch a controversial clip on YouTube or to snub it. We will not surrender the power to make these decisions to the Government of Bangladesh without making our voices heard, for history has taught us that government is more apt to use this power to persecute vulnerable groups than to protect the public good. If the people of Bangladesh are to be the masters of their fate and of their elected government, they must be well-informed and have access to all points of view. Ignorance is a breeding ground for oppression and tyranny. Censorship fits authoritarian governments such as those in Saudi Arabia and North Korea, but not the proud nation of Bangladesh.

In addition to being a moral right, the right to free speech is also a universal human right. It is enshrined in Article 19 of the United Nation’s Universal Declaration of Human Rights, which states: “Everyone has the right to freedom of opinion and expression; this right includes freedom to hold opinions without interference and to seek, receive and impart information and ideas through any media and regardless of frontiers.”

Furthermore, the honorable Prime Minister’s aspirational goal of a “Digital Bangladesh” presupposes that the citizens have free access to information. Any action taken to limit the free flow of information severely undermines the present government’s commitment to its own stated vision of a “Digital Bangladesh”. The government’s current ban of YouTube and the proposed continued censorship of the content therein will not only delegitimize the government’s own political standing and technology policies in the short term, but will also impugn on the current government’s legacy. There is no doubt that history will judge internet censorship harshly and the current government, instead of being remembered for its promotion of a “Digital Bangladesh”, will likely be remembered more for censorship’s crippling effect on democracy and “Digital Bangladesh”.

Government actions in recent years stand in stark contradiction not only to the government’s own policies, but also to the Universal Declaration of Human Rights, and to human decency. In March 2009, YouTube was blocked in Bangladesh after a video was posted that revealed the military’s discontent with how the government was handling a mutiny by border guards in Dhaka. In May 2010, the Government of Bangladesh blocked access to Facebook, a popular social networking site, after the arrest of a youth for uploading satiric images of some politicians, including the prime minister and the leader of the opposition. Most recently, on 17 September 2012, YouTube was banned for the second time following the controversy surrounding “Innocence of Muslims,” an anti-Islamic movie trailer.

Internet censorship gives the government the power to determine what information citizens can consume on the internet. The practice is an attack on the right to freedom of speech and expression, and a threat to democracy and development.

We urge you to stop censoring the Internet, and to instantly halt your plans to establish a localized version of YouTube in Bangladesh. We recognize that this takes political courage, but we trust that you will do the right thing.

Thank you for your time.

Sincerely yours