কোটা ব্যবস্থা সংস্কার চাই

0 have signed. Let’s get to 10,000!


স্বাধীনতার প্রায় অর্ধ শতাব্দী পেরিয়ে বাংলাদেশের মেধাবী তরুণ প্রজন্ম আজ এক হৃদয় বিদারক পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছে। সময়ের সাথে সম্পূর্ণ বেমানান এই কোটা ব্যবস্থার চোরাবালিতে তলিয়ে যাচ্ছে লাখো তরুণের চোখ ভরা স্বপ্ন। যথেষ্ট মেধাবী হওয়া সত্ত্বেও আপ্রাণ চেষ্টা করে একটি চাকরি না পেয়ে কত যে তরুণ আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে।

সরকারি চাকরিতে দেশের ৩ থেকে ৪ শতাংশ মানুষের জন্য বরাদ্দ রয়েছে ৫৬ শতাংশ আসন। কিন্তু বাকি ৯৬% মানুষের জন্য বরাদ্দ রয়েছে মাত্র ৪৪ শতাংশ আসন। এমন বৈষম্যের নজির পৃথিবীর আর কোথাও নেই।

সরকারি চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে সমান সুযোগ পাওয়া দেশের সকল নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার। বাংলাদেশ সংবিধানের ২৯।(১) অনুচ্ছেদ সকল নাগরিককে প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিয়োগ লাভের ক্ষেত্রে সুযোগের সমতার নিশ্চয়তা দিচ্ছে।

তাই সর্বসাধারনের পক্ষ থেকে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান থাকবে যেন পবিত্র সংবিধানের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে বিদ্যমান কোটা ব্যবস্থা সংস্কারে নিন্মোক্ত পদক্ষেপ গ্রহন করে। কোটা ব্যবস্থা সংস্কারের জন্য ৬ দফা সুনির্দিষ্ট দাবিগুো হলো:

১। কোটা ব্যবস্থার সংষ্কার করে ৫৬% থেকে ১০% এ নামিয়ে আনা হোক।

২। কোটার যোগ্য পার্থী না পাওয়া গেলে শুন্য পদগুলোতে মেধায় নিয়োগ দেয়া হোক।

৩। চাকরির পরীক্ষায় কোটার সুবিদা একাধিকবার ব্যবহার করা যাবেনা।

৪। কোটার কোন ধরনের বিশেষ পরীক্ষা নেয়া যাবেনা।

৫। চাকরির ক্ষেত্রে সবার জন্য অভিন্ন বয়সসীমা করতে হবে।

৬। মুক্তিযোদ্ধা কোটার ব্যবহার শুধুমাত্র মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানদের জন্য সীমাবদ্ধ রাখা।